ছোট গেমস মজা বেশি(পর্ব-৩২): সেই ঐন্দ্রজালিক অন্বেষণ তারকা মিকি মাউস (অ্যান্ড্রয়েড/পিসি)

ছোট গেমস মজা বেশি(পর্ব-৩২): সেই ঐন্দ্রজালিক অন্বেষণ তারকা মিকি মাউস (অ্যান্ড্রয়েড/পিসি)
আসসালামু আলাইকুম। খুব ধীর গতিতে পোস্ট করছি, তাই না? আসলে গত বছর জানুয়ারী মাসের ২ তারিখে আমার হাতে ১৬ টা বই ধরিয়ে দেওয়া হয়েছিল। সেই অভিশাপ এই বছরেও কাটেনি। তাছাড়া, পরিমাণের চেয়ে মান বেশি গুরুত্বপূর্ণ। তাই্, এখন অল্প সময়েই হুট হাট করে পোস্ট আর করব না বলে ঠিক করেছি। যেমন এই পোস্টটা লিখা শুরু করেছিলাম তিন দিন আগে। প্রতিদিন পড়ার ফাঁকে একটু একটু করে লিখছি।

এই পোস্টটি মূলত উইকিপিডিয়া এবং আরো কিছু সাইট ও ম্যাগাজিনের সাহায্যে করা হয়েছে। তাই, একটু বেশি তথ্যবহুল। এত প্যাঁচ ভাল না লাগলে সোজা নিচে গেম সম্বন্ধে নামে একটা হেডিং আছে। ওখানে নেমে যান।

শিরোনাম পরে যারা দন্ত ভাঙিয়া ফেলেছেন, তারা প্রথমেই দাঁতের চেকআপ করে আসুন। সামনে আরো কঠিন শব্দ আসছে। সহজ ভাষায় বললে, শিরোনামটা একটু সহজ ভাবে বললে বলতে হবে, জাদুকরী অনুসন্ধানে মিকি মাউস। আসলে ইংরেজী নামটাও বড্ড কঠিন, The Magical Quest Starring Mickey Mouse. বিশেষ করে Starring শব্দটার সঠিক অর্থ কি বুঝতে পারছি না, এটা হতে পারে তারকামন্ডিত, হতে পারে অভিনয়, হতে পারে তারকা।তবে যাই হোক, নামটা বেশ কঠিন, এটাতে সন্দেহ নাই।

Image result for Disney Starring Mickey Snes

দাঁতের চেকআপ না করা হলে আর পড়বেন না, না হলে দাঁত ভাঙিলে নিজেই দায়ী থাকবেন। ডিজনীর ঐন্দ্রজালিক অনুসন্ধান (Disney's Magical Quest) অথবা জাপানী ভাষায় ডিজনীর ঐন্দ্রজালিক দুঃসাহসী অভিযান ( ミッキーのマジカルアドベンチャー Mikī no Majikaru dobenchā/Disney's Magical Adventure) সিরিজের প্রথম গেম এটি। সিরিজের তিনটি গেম একই গেমপ্লের উপর ভিত্তি করে ভিন্ন ভিন্ন কাহিনীর উপর প্রস্তুত করা হয়েছে। এই সিরিজে মিকির প্রধান শত্রু পেগ-লেগ-পেট। ওর আসল নাম ভয়ানক টম(Terrible Tom) এবং পুরো নাম Peter Pete, Sr. এছাড়াও Bad Pete, Big Pete, Big Bad Pete, Black Pete, Bootleg Pete, Dirty Pete, Mighty Pete, Pee Wee Pete, Peg-Leg Pete, Petey, Pistol Pete, Sneaky Pete, Piston Pete নামে পরিচিত। উমম, ঠিক ধরেছেন, নামগুলো উইকিপিডিয়া থেকে কপি করলাম। বাপরে! কত নাম! ভয় পাইসি। অনুবাদকের সাহায্য নিয়ে যথাক্রমে এদের অর্থ হবে খারাপ পিট, বড় পিট, বড় খারাপ পিট, কাল পিট, বুটজুতা পায়ে পিট, নোংরা পিট, শক্তিশালী পিট, পি উই পিট(অর্থ জানি না), খুঁটি পা পিট, পিটি, বন্দুক পিট, গোপন পিট, চাপদন্ড পিট। আবার ভয় খাইলাম! আবারো বলি, কারো দাঁতে সমস্যা হলে আমি দায়ী নই। যাক! পিটের নাম শুনে নিশ্চয়ই বুঝতে পারছেন, নায়ক টায়ক টাইপের কিছু ও না। হুমম, মিকি মাউসের প্রধান খলনায়ক এই পিট। পিট সম্বন্ধে আরেকটু জেনে রাখুন, ওর প্রথম আগমন ঘটে ১৯২৫ সালে, মিকি মাউসের এলিস ধাঁধার সমাধান করল(Alice Solves The Puzzle) পর্বে আর ওয়াল্ট ডিজনী আর ইউবি আইয়ুউইর্কস এর হাত ধরে। Norm Ferguson একে বিকশিত করেন। মূলত, মিকি মাউসে একটা খলনায়কের প্রয়োজন অনুভব করেই একে আনা হয়। বুঝতেই পারছেন, ইঁদুরের শত্রু বিড়াল। তাই অবশ্যই পিট একটা বিড়াল। তবে খলনায়ক হলেও ওরও একটা জীবন আছে, বউ-বাচ্চা আছে। ওর স্ত্রীর নাম পেগ। মেয়ে Pistol Pete আর ছেলে Peter "P.J." Pete, Jr.

বোধহয় ওর একটা ফাইল ফটো দেখতে ইচ্ছে করছে। প্রথম আগমনে এর চেহারা ছিল এরকম।


আর আপনি মিকি মাউসের ভক্ত হয়ে থাকলে আপনার পরিচিত পিটের চেহারা এরকম-

আচ্ছা, খলনায়কদের কথা অনেক হল, এবার মিকির কথায় আসি। ১৯২৫ সালের কথা। অফিসে কাজ করছিলেন ডিজনী। এসময় তার চোখে পড়ল এক শান্ত ভদ্র ইঁদুর। ডিজনীর পাশে থাকা হাফ হারম্যান কিছু স্কেচ এঁকে ফেললেন ইঁদুরটির। পরবর্তীতে ১৯২৮ সালে এই স্কেচগুলো থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে আইওয়ার্ক্স(Ub Iwerks) তৈরি করেন মিকির স্কেচ। বস ডিজনীর তা মনে ধরে। কিন্তু তিনি এর নাম নিয়ে দ্বিধায় পরে যান। প্রথমে ভেবে চিন্তে নাম দেন মার্টিমার মাউস। কিন্ত তার স্ত্রী লিলিয়ানের তা মনে না ধরায় তিনি মিকি মাউস নাম রাখতে বলেন। বুঝতেই পারছেন, ডিজনীর নাম বদলানো ছাড়া আর উপায়ই থাকে না। আর এভাবেই জন্ম হয় মিকির। মিকিই পরে হয় ওয়াল্ট ডিজনি কোম্পানীর অফিসিয়াল মাসকট। ওর বন্ধুদের মধ্যে আছে মিনি মাউস, ডোনাল্ড ডাক, ডেইজি ডাক, গুফি দ্য ডগ সহ আরো অনেকে। এমনকি পুরোদস্তুর মানুষের মত জুতা মোজা দস্তানা পড়া এই ছোট্ট ইঁদুরটির একটা পোষা কুকুরও আছে। নাম প্লুটো।

Image result

গেম সম্বন্ধে

মূল পোস্টে আসার আগেই অনেক কথা হয়ে গেল। এবার আসি আজকের গেম নিয়ে। আজকের গেমের নাম তো বলেছিই, The Magical Quest Starring Mickey Mouse. এই গেমটি ১৯৯২ সালে সুপার নিনটেনডু এনটারটেইনমেন্ট সিস্টেম, সংক্ষেপে সুপার নিনটেনডু, আরেকটু সংক্ষেপে সুপার নেস এবং আরো সংক্ষেপে এসনেস প্লাটফর্মে রিলিজ করা হয়। পরবর্তীতে কিছু উন্নত করে The Magical Quest Starring Mickey And Minney নামে ১৯৯৩ সালে গেম বয় এডভান্স বা জিবিএ প্লাটফর্মে এটি রিলিজ হয়। এখানে চরিত্র হিসেবে মিকির পাশাপাশি মিনি মাউস অন্তর্ভুক্ত হয়। সাধারণ প্লাটফর্মার গেম (সুপার মারিও, কন্ট্রা, মেগা ম্যান,...) গুলোর মতই এই গেমের গেমপ্লে।

কাহিনী

গেমের প্রথমে দেখা যায় পার্কে ক্যাচ খেলছিল মিকি আর তার বন্ধুরা। হঠাৎ গুফির মারা একটি বল মিকির মাথায় লাগে কিন্তু মিকি তা ধরতে ব্যার্থ হয়। এগিয়ে আসে প্লুটো। কিন্তু বল খুঁজে আনতে গিয়ে আর ফিরে আসে না সে। মিকি হয় পেয়ে যায় প্লুটোকে নিয়ে। গুফি কথা দেয় সে নিশ্চয়ই প্লুটোকে খুঁজে আনবে। কিন্তু বসে থাকে না মিকি। বেরিয়ে পড়ে প্লুটোর খোঁজে 'ঐন্দ্রজালিক অন্বেষণে'। এক সময় জানতে পারে, তার কুকুরকে ধরে নিয়ে গেছে ভয়ানক 'পেগ-লেগ-পেট', যার সম্বন্ধে উপরে বলেছি। মিকি জানতে পারে, প্লুটোকে উদ্ধারে গেলে আশংকা রয়েছে নিজ জীবনের। আত্মরক্ষা করবে না প্লুটোর খোঁজ, এ নিয়ে কোন ভাবনা বাদেই প্লুটোকে খুঁজে বের করার সিদ্ধান্ত নেয় মিকি...

গেম প্লে

এই গেমের এসনেস ভার্সনে মিকি অথবা গেমবয় এডভান্স ভার্সনে মিকি অথবা মিনিকে নিয়ে খেলতে পারবেন। শত্রুদের উপর লাফিয়ে পড়ে অথবা কোন কিছু গ্রাব করে ছুঁড়ে মেরে তাদের শেষ করতে পারবেন। প্রতিটা লেভেলে সম্ভাব্য সর্বোচ্চ পয়েন্ট আর কয়েন কালেক্ট করে এভাবেই এগিয়ে যেতে হবে, পেটের প্রাসাদের দিকে...! কয়েন দ্বারা স্টোর থেকে কোন দ্রব্য ক্রয় করতে পারবেন। আর এই স্টোরগুলো লুকানো আছে কিছু জায়গায়। খুঁজে নিতে হবে আপনাকে! বিভিন্ন লেভেলে নতুন নতুন পোশাক পাবে মিকি। প্রতিটি পোশাকে মিকির থাকবে আলাদা রকম ক্ষমতা।

এক নজরে

ডেভেলোপার: ক্যাপকম

পাবলিশার: ক্যাপকম, নিনটেনডু, ডিজনি ইন্টারএকটিভ

প্রস্তুতকারক: নোয়া ডিউডলি

প্লাটফর্ম: এসনেস, গেমবয় এডভান্স

ধরণ: প্লাটফর্মার

প্রকাশের তারিখ: ২০ নভেম্বর ১৯৯২

রেটিং

গেমটির এসনেস ভার্সনটি খুব ভাল রেটিং পেয়েছে। গেম র্যাঙ্কিং-এ এর স্কোর ৮৫.৫%। ইজিএম, নিনটেনডু পাওয়ার আর সুপার প্লে যথাক্রমে রেট করেছে ৯/১০, ৪.১/৫ ও ৮৫%।

তবে গেমবয় এডভান্স ভার্সনটির রেট অনেক পিছিয়ে। গেমস্পট আর আইজিএনে এর স্কোর যথাক্রমে ৬.৬/১ ও ৬/১০

আমাকে যদি রেট করতে বলা হয় এসনেস ভার্সনকে আমি ১০ এ ৯.৫ দিব :)

স্ক্রিণশট

The Magical Quest Starring Mickey Snes এর চিত্র ফলাফল

The Magical Quest Starring Mickey Snes এর চিত্র ফলাফল

The Magical Quest Starring Mickey Snes এর চিত্র ফলাফল

The Magical Quest Starring Mickey Snes এর চিত্র ফলাফল

সম্পর্কিত চিত্র

The Magical Quest Starring Mickey Snes এর চিত্র ফলাফল


গেমটি ডাউনলোড করুন

গেমটির গেমবয় ভার্সন একটু আপডেটেড হলেও এসনেস ভার্সনটিতেই বেশি মজা পাবেন। খেলার জন্য প্রথমে দরকার হবে একটি এসনেস ইমুলেটর। এবং এরপর গেম ফাইল (রম)। দুটি একত্রে জিপ (.zip) ফরম্যাটে ডাউনলোড করতে পিসি ব্যবহারকারীরা এখানে যান। এরপর ফাইলটি এক্সট্রাক্ট করুন। নতুন দুটি .zip ফাইল পাবেন। 'zsnesw151-402.zip' ফাইলটি এক্সট্রাক্ট করুন। এবার zsnesw.exe ফাইলটি অপেন করুন। গেম>লোড>Magical Quest Starring Mickey Mouse, The (USA) সিলেক্ট করে গেমটি শুরু করুন। অ্যারো কি দিয়ে মুভমেন্ট, এন্টার স্টার্ট বান আর স্পেস সিলেক্ট বাটন হিসেবে ব্যবহার করুন। লাফ দিন Z এবং কোন কিছু ধরুন বা নিক্ষেপ করুন A কি দিয়ে।

আর এন্ড্রয়েড ব্যবহার করলে এখানে প্লে স্টোর থেকে ইমুলেটর ডাউনলোড করে নিন। এরপর এখানে গিয়ে ডাটা ফাইল হোস্ট থেকে রম ফাইল ডাউনলোড করুন। ইমুলেটর ইন্সটলের পর অপেন করে রম লোড করে গেমটি খেলুন।

বিদায়!

যদি পড়ার পড়ার পর এটুকুও না জানান, গেম বা পোস্টটি কেমন লাগল, তাহলে মনে হয় এই ১১২২ শব্দ লেখাই বৃথা। তাই, একটু এই পোস্ট সম্বন্ধে আপনার মতামত প্রকাশে একটা মিনিট ব্যয় করবেন। আল্লাহ হাফেজ।

ছোট গেমস মজা বেশি(পর্ব-৩১): ওয়াল্ড ক্রিকেট চ্যাম্পিয়নশীপ ২(উইন্ডোজ ৮.১/১০/উইন্ডোজ ফোন/অ্যান্ড্রয়েড)

ছোট গেমস মজা বেশি(পর্ব-৩১): ওয়াল্ড ক্রিকেট চ্যাম্পিয়নশীপ ২(উইন্ডোজ ৮.১/১০/উইন্ডোজ ফোন/অ্যান্ড্রয়েড)
আসসালামু আলাইকুম। আমার ছোট গেমস মজা বেশি একত্রিশতম পোস্টে স্বাগতম।

WCC 2 এর চিত্র ফলাফল

আমি যদিও আপাত দৃষ্টিতে একজন গেমার না, তবুও প্রতিটা মানুষেরই একাধিক পরিচয় থাকে। তাই, আমারও জীবনের একটি পরিচয় হল আমি একজন গেমার। আমার গেমিং জীবনের সবচেয়ে বড় দুঃখ দুটি। প্রথমটি হল, আমাদের বিজয় দিবসে, গত বছরের ডিসেম্বর মাসের ১৬ তারিখে পিএসফোর ও এক্সবক্স ৩৬০ এ রিলিজ পাওয়া ডন ব্র্যাডম্যান ক্রিকেট ১৪ এর সিক্যুয়েল, ডন ব্র্যাডম্যান ক্রিকেট ১৭, যেটি আর ৭ দিন পরেই পিসিতে রিলিজ পাওয়ার কথা, আমার পিসিতে চলবে না। ওটার আবার ৪ গিগাবাইট RAM প্রয়োজন, কিন্তু আমার পিসির RAM মাত্র ২ গিগাবাইট। তাই, ওটার পিএসফোর গেমপ্লে ভিডিও দেখেই দুঃখ ভুলার চেষ্টা করেছি। কিন্তু শুধুই দুঃখ বেড়েছে। :( উঁয়া :( উঁয়া :(

আরেকটা দুঃখ ছিল, বর্তমানের সবচেয়ে জনপ্রিয় অ্যান্ড্রয়েড ক্রিকেট গেম, ওয়ার্ল্ড ক্রিকেট চ্যাম্পিয়নশীপ ২ খেলতে না পারা। যদিও বয়স মাত্র ১৫, তাও কেন জানি এই যুগে আমার মোবাইল ফোন নেই, এটা বললে অনেকেই ভাবে তাকে আমি আমার নাম্বার না দিতে চাওয়ার ধান্দা করছি মাত্র। যাই হোক, আমার নিজের কোন ফোন নাই। আম্মুর অ্যান্ড্রয়েডে এক-আধটু গেম খেলি মাঝে মাঝে। কিন্ত সেখানে মাত্র এবং কেবল মাত্র ৫১২ মেগাবাইট RAM বলে গেমখানা চলে না। তাই, খুব দুঃখের সাথে ব্লুস্টাক নিসিলাম। জানি, ব্লুস্টাকে গেম খেলে শান্তি নাই, তবু ব্লুস্টাক দিয়েও গেমটা খেলা গেল না।

কিন্তু দ্বিতীয় দুঃখটার সমাধান আমাকে করে দিয়েছে উইন্ডোজ স্টোর। স্টোরে যে বিনামূল্যেই গেমটি পেয়ে যাব, ভাবিনি। তাই এখন গেমিং লাইফে বড়সড় দুঃখ বলতে একটাই বাকি থাকল। আশা করি, আজ না হোক, নিশ্চয়ই কোন এক দিন আমার পিসিতে আমি ডন ব্র্যাডম্যান ক্রিকেট ১৭-ও খেলতে পারব।

আজকের গেম

হুমম, অবশ্যই আমাদের আজকের গেম ওয়ার্ল্ড ক্রিকেট চ্যাম্পিয়নশীপ ২। এই গেমটি আপনি এন্ড্রয়েড ও উইন্ডোজ ফোন এবং উইন্ডোজ ১০ ও উইন্ডোজ ৮.১ পিসিতে খেলতে পারবেন। তবে দুঃখের বিষয় হল, উইন্ডোজ XP/7/8 এ চলবে না এই গেমটি।

গেম সম্বন্ধে

একজন ক্রিকেট ফ্যান হিসেবে এই দুঃখবোধটা থাকবেই, বছর বছর ফিফা, পেস ইত্যাদি ফুটবল গেম অ্যান্ড্রয়েড আর পিসির জন্য নিয়মিত বের হলেও আমাদের এক-একটা গেমের জন্য অনেক অপেক্ষা করতে হয় অনেক দিন। এন্ড্রয়েড এবং পিসির ফুটবল গেমের অভাব নেই সত্য, কিন্তু ক্রিকেট গেমের অভাব বড়ই বেশি। তাই, এক-একটা ক্রিকেট গেমের মূল্যই আমাদের কাছে অন্যরকম। তাই, নেক্সট ওয়েভ মাল্টিমিডিয়ার এই গেমটি গ্রাফিক্স কোয়ালিটি, সাউন্ড ইত্যাদি খুব বেশি উৎকৃষ্ট (যুগের তুলনায়) না হলেও আমাদের জন্য যথেষ্ট :) গেমটিতে মূলত চার ধরণের গেম মোড আছে, প্রাকটিস মোড, কুইক প্লে, টুর্ণামেন্ট আর টেস্ট। আরো আছে চ্যালেঞ্জ এ ফ্রেন্ড, হট ইভেন্টস ইত্যাদি। গেমটির মেনুতে ব্যবহৃত হয়েছে উইন্ডোজ ৮ এর মত টাইলস, অবশ্য সেগুলো লাইভ না :(

WCC2 এর চিত্র ফলাফল

প্রাকটিস মোডে আপনি বিভিন্ন শটের অনুশীলন করতে পারবেন। কুইক প্লেতে কনফিগারেশন করে নিয়ে খেলতে পারবেন পছন্দ মত ম্যাচ। টুর্নামেন্ট আছে ৫ ধরণের। তবে গেমের সবচেয়ে বড় ফিচার হল টেস্ট ক্রিকেট। শর্টার এডিশনে ৬ বলে ৫ টা ৬ আমি দুই-তিন বার মেরেছি, কিন্তু টেস্টে কিন্তু এসব খাটবে না!

WCC2 এর চিত্র ফলাফল

টেস্ট ক্রিকেটে লফট মিটার পূর্ণ না হলে আপনি উড়িয়ে মারতে পারবেন না বল। এটা বেশ মজার করেছে গেমটাকে। এর ফলে টেস্ট খেলতে গেলে আপনাকে টেস্ট মেজাজেই খেলতে হবে।

গেমটিতে আছে থার্ড আম্পায়ার ডিশিসন, কমেন্টি, ছয় দুরত্ব মাপক, দুই ধরণের ক্যামেরা মোড সহ বিভিন্ন ফিচার। গেমটার এন্ড্রয়েড ভার্সনে ডিআরএস থাকলেও পিসি ভার্সনে এখনও নেই 🙁

  World Cricket Championship 2- screenshot

  World Cricket Championship 2- screenshot

  World Cricket Championship 2- screenshot

  World Cricket Championship 2- screenshot



গেমটার পূর্ণ মজা পেতে হলে পিসিতে অবশ্যই সাইন ইন করে নিতে হবে। নাহলে অনেক ফিচার পাবেন না। সাইন ইন করতে মাইক্রোসফট একাউন্ট লাগবে। ওটা বিনামূল্যে করে নিতে পারবেন। তবে এসময় শুধু মাথায় রাখবেন, সাইন ইন করার সময় একসময় একটা অপশন পাবেন জাস্ট সাইন ইন ফর দিস অ্যাপ। ওটায় মার্ক না করলে পরবর্তীবার থেকে আপনার পিসিতে ঢুকতে সাইন ইন করার প্রয়োজন হবে।

কন্ট্রোল

মোবাইলের কন্ট্রোল হল সোয়াইপ করে বলে পাঠাতে হবে। লফট বাটনে ক্লিক করে লফটেড শট খেলা যাবে। রান এবং ক্যানসেল রান বাটনে ক্লিক করে রান নিতে হবে। আর বল করার জন্য গতি এবং সুইং বা স্পিনের দিক ট্যাপ করে ঠিক করে নিয়ে সোয়াইপ করে বল ফেলার পজিশন ঠিক করতে হবে।

পিসির ক্ষেত্রে অ্যারো কি দিয়ে শটের দিক বা ব্যাটসম্যানের পজিশন ঠিক করতে হবে। শট করতে হবে ‘S’ চেপে। লফট খেলার জন্য ‘A’ চেপে রাখতে হবে। ‘D’ দিয়ে রান নিতে পারবেন এবং ‘C’ দিয়ে রান নেওয়া ক্যানসেল করা যাবে। বোলিংয়ের গতি, স্পিন বা সুইংয়ের দিক বুঝে ‘S’ চেপে নির্ধারণ করে অ্যারো কি দিয়ে বল ফেলার পজিশন ঠিক করতে হবে।

ডাউনলোড

পিসিতে খেলার জন্য উইন্ডোজ স্টোরে সার্চ দিয়ে বিনামূল্যে ডাউনলোড করে নিন। তবে এই স্টোরটি কেবল উইন্ডোজ ৮.১/১০ এই পাবেন। স্টোর ছাড়া আর কোথাও গেমটি পাবেন না।

আর এন্ড্রয়েডের জন্য তো প্লে স্টোরে গেমটি থাকছেই!

বিদায়!

পোস্টটি আপনার ভাল লাগলে কমেন্ট করুন, শেয়ার করুন। আর অামাদের সাথেই থাকুন।
আমার ব্লগ: গ্রিন রেঞ্জারস+

ডার্ক সেন্সর বানাও, অন্ধকারে নিজেই জ্বলবে আলো!

ডার্ক সেন্সর বানাও, অন্ধকারে নিজেই জ্বলবে আলো!
English Feed :)
কেমন আছো সবাই?
আজকের এই ইলেক্ট্রনিক্স প্রোজেক্ট দিয়েই আমার ইলেকট্রনিক্সে হাতে খড়ি। <3 p="">হ্যাঁ, এটা একটা ডার্ক সেন্সর বা অন্ধকার সংবেদী ডিভাইজ।
এই ধরণের সার্কিট বেশ সহজ হয় বানাতে। যে কেউ এটা বানাতে পারে।
কিন্তু আমাদের ব্লগের জন্য, আমি আবার এটা বানালাম।



এই সার্কিটে আমি বিসি৫৪৭ এনপিএন ট্রাঞ্জিস্টর ব্যাবহার করেছি।



LDR
How It Works

















একটা এনপিএন ট্রাঞ্জিস্টর সুইচ করতে হলে পজিটিভ চার্জ দরকার হয়।
এবং সেন্সর হিসেবে আমি এলডিআর বা লাইট ডিপেন্ডেন্ট রিসিস্টর ব্যাবহার করেছি। এটি এক ধরণের ফটো রিসিস্টর।

এলডিআর এর রেজিস্ট্যান্স বা রোধকত্ব তার ওপরের আলোর উপস্থিতির ওপর নির্ভর করে।



যখন এলডিআর এর উপরে আলোর উপস্থিতি বেড়ে যায়, তখন এলডিআর এর রিসিট্যান্স অনেক কমে শূন্যের কোঠায় চলে যায়।
আবার যখন আলো কমে যায় তখন এর রোধকত্ব বেড়ে যায়। এবং প্রায় ১ মেগা ওহমের উপরে চলে যায়।

ট্রাঞ্জিস্টরে পজিটিভ বায়াস দিতে আমি একটা ১০০ কিলো ওহমের ভলিউম বা পটেনশিওমিটার লাগিয়েছি।
এবং এলডিআর দিয়ে গ্রাউন্ড বায়স দিয়েছি।

যখন এলডিআর এর উপরে আলো পড়ে তখন রোধ কমে যায় এবং পজিটিভ চার্জ ট্রাঞ্জিস্টর সুইচ না করে গ্রাউন্ডে চলে যায়। আর এলইডি বন্ধ থাকে।
আবার এলডিআরে ছায়া পড়লে এলডিআর এর রোধ বেড়ে যায় এবং পজিটিভ চার্জ আর গ্রাউন্ডে না যেয়ে বেজ সুইচ করে। আর এলইডি জ্বলে ওঠে।
এভাবে এটা দিয়ে অটোমেটিক নাইট লাইট বানানো যাবে।
নিচে এর ডায়াগ্রাম দিয়ে দিলাম। সব শেষে ভিডিও টিউটোরিয়াল আছে।

ছোট গেমস মজা বেশি(পর্ব-৩০): বাবল বার্ড

ছোট গেমস মজা বেশি(পর্ব-৩০): বাবল বার্ড
আস সালামু আলাইকুম। বাসা পরিবর্তন করার কারণে গত কিছু দিন সময় পাই নি। তাই একটু দেরিতেই লিখছি ত্রিশতম পোস্ট।

আজকের গেম

আজকে একটি সুন্দর গেম নিয়ে এসেছি অ্যান্ড্রয়েড গেমার দের জন্য। আজকের গেমটি দারুণ একটি ম্যাচ থ্রি পাজল গেম, বাবল বার্ড।
প্লে স্টোরে গেমটির ব্যবহারকারীরা একে রেট করেছে ৪.২। অর্থাৎ, বেশিরভাগ ব্যবহারকারীই পছন্দ করেছেন এই গেমটি।
গেমটি একটি সাধারণ ম্যাচ-থ্রি গেম হলেও এর রয়েছে নতুন নতুন দারুণ কিছু বৈশিষ্ট্য যা আপনার ভাল লাগবে।
Cover art

গেম সম্বন্ধে

গেমটিতে অনেকগুলো লেভেল রয়েছে। প্রথম দিকের লেভেল গুলো আপনার বেশ সহজ মনে হতে পারে। তবে পূর্ণ তিন তারা পেয়ে শেষ করা খুব সহজ হবে না। আর প্রায় ২৫ তম লেভেলে পৌছানোর পর গেমটি খুব কঠিন হয়ে উঠবে।
গেমটি একই সাথে একটি ম্যাচ থ্রি পাজল এবং শ্যুটিং গেম। ম্যাচ থ্রি বলতে সেই গেম গুলোকে বোঝানো হয় যেখানে একই রঙের তিন বা ততোধিক বস্তু ম্যাচ করতে হয়। এই গেমেও আপনাকে সেটিই করতে হবে। এ ধরণের গেম গুলো আমার সাধারণত খুব বেশি ভাল লাগে না। কিন্তু এই গেমটি ব্যতিক্রম। এখানে পাখি দের শ্যুট করে তিনটি বা এর বেশি পাখি মিলালে পাখিগুলো উধাও হয়ে যাবে। যত বেশি পাখি উধাও করতে পারবেন, পাবেন তত বেশি পয়েন্ট। এভাবে যত বেশি পয়েন্ট সংগ্রহ করবেন, তত বেশি তরকা পেয়ে লেভেল শেষ করতে পারবেন। তিন তারকা পেয়ে লেভেল গুলো শেষ করা খুব সহজ কখনোই হবে না।
গেম টিতে পাখি দের উধাও করতে করতে এক সময় একটি পাখির বাসার দেখা পাবেন। সেটিতে শ্যুট করার মাধ্যমে প্রতিটি লেভেল শেষ করতে হবে।
গেম টিতে কিছু লেভেল কয়েন দিয়ে আনলক করতে হবে। এই কয়েন আপনি ইন অ্যাপ পারচেজের মাধ্যমে কিনতে পারবেন। ভয় পেলেন? ভয় পাওয়ার কিছু নাই, প্রতিটি লেভেলে কয়েনে শ্যুট করার মাধ্যমেও আপনি কয়েন সংগ্রহ করতে পারবেন। কোন লেভেলে গিয়ে আটকে গেলে ৫০ কয়েনের বিনিময়ে ওই লেভেল স্কিপ করতে পারবেন। তাছাড়া কয়েন থাকলে গেমের শপ থেকে বোম, মাল্টি কালার বল আর ক্রুদ্ধ নীল পাখি (নাম গুলো আমার দেওয়া) খরিদ করতে পারবেন।
গেম টিতে প্রতিটি লেভেলে একটি লাইন দেখতে পাবেন। পাখি গুলো এই লাইন স্পর্শ করলে আপনি পরাজিত হবেন। গেমটিকে আরেকটু মজাদার করার জন্য আছে  বার্ড এক্সপেন্ডার, বার্ড ডাইয়েজ, ব্লক, বার্ড মাইন ও হুইরপুল। বার্ড এক্সপেন্ডারের কোন পাখিকে আঘাত করলে এর আশে পাশের খালি জায়গায় নতুন পাখি যোগ হবে। বার্ড ডাইয়েজের পাখিকে আঘাত করলে এর চারপাশের সব পাখি ওই একই রঙের পাখিতে পরিণত হবে। আর ব্লক রিমুভ করতে এর পরের পাখি গুলোকে উধাও করতে হবে। বার্ড মাইনে আঘাত করলে পাখি গুলো নিচে নেমে যাবে, যা কঠিন লেভেল গুলোতে খুব জটিল সমস্যা সৃষ্টি করবে। হুইরপুলে আঘাত করলে যে কোন ধরণের শট এটি শুষে নিবে।

এক নজরে

গেমের নামঃ বাবল বার্ড
বর্তমান ভার্সনঃ ১.২.৬
প্রকাশের তারিখঃ ২০ অক্টোবর ২০১৬
প্রয়োজনীয় এন্ড্রয়েড ভার্সনঃ ২.৩ অথবা উচ্চমানের
নির্মাতাঃ Ezjoy
আকারঃ ৮ মেগা বাইট
রেটিংঃ ৩+

ছোট গেমস মজা বেশি সিরিজ সম্বন্ধে

  • ১। পোস্ট করার পূর্বে প্রতিটি গেম চেক করে নেওয়া হয়। ভাল লাগা গেমগুলো নিয়েই পোস্ট করি।
  • ২। ডাউনলোড লিংক চেক করে পোস্ট দেওয়া হয়। তথাপি, এ সংক্রান্ত সমস্যায় আমি দায়ী থাকব না। নিজ দায়িত্বে ডাউনলোড করুন।
  • ৩। ডাউনলোডে সমস্যা হলে কমেন্টে জানান। আপডেট করে দেওয়া হবে ইংশাআল্লাহ।
  • ৪। এই পোস্টগুলো কপিকৃত নয়। সরাসরি অনুবাদও নয়। তবে বিভিন্ন ওয়েবসাইটের সাহায্য নেওয়া হয়ে থাকতে পারে। এই ক্রেডিট দেওয়া অনেক সময় সম্ভব হয় না।
  • ৫। ছবিগুলো অনেকক্ষেত্রে নিজের স্ক্রিণশট নেওয়া। অনেকক্ষেত্রে গুগলে সার্চ দিয়ে পাওয়া। এক্ষেত্রেও ক্রেডিট দেওয়া সম্ভব হয় না।
  • ৬। কেবলমাত্র ছোট এবং মজার গেমগুলোই পাবেন। বড়সড় কিছু পাবেন না।
  • ৭। প্রোফেশনাল গেমারদের জন্য মূলত এটি নয়।
  • ৮। সপ্তাহে ২-৩ টি পোস্ট করার চেষ্টা করা হয়।
  • ৯। প্রতি পোস্টে সাধারণত একটি করে গেম থাকবে।
  • ১০। ডাউনলোড সাইজ সাধারণত ৫-৫০ মেগাবাইট হবে। তবে এটি বেশি এমনকি কমও হতে পারে। তবে ৫ এমবির কম সাইজের ক্ষেত্রে সাধারণত একাধিক গেম থাকবে।
  • ১১। অনেক সময়ই পুরনো আমলের গেমগুলো এই সিরিজে অন্তর্ভূক্ত করা হয়। আবার নতুন রিলিজ হওয়া ছোটখাট গেমগুলোও পা্বেন।
  • ১২। সব বয়সের উপযোগী গেমই (অর্থাৎ, যেগুলো Everyone রেটিং পাওয়ার যোগ্য) কেবল পোস্ট করা হয়।

শেষ কথা

আশা  করছি, এই পোস্টের সব পাঠকদের মোবাইল ফোনেই এই গেমটি চলবে। গেমটি সবাই খেলে দেখবেন। পোস্টটি ভালো লাগলে কমেন্ট করতে ভুলবেন না। আর ভাল না লাগলে অবশ্যই জানাবেন কি করলে আমার পরবর্তী পোস্টগুলো আরো সুন্দর হবে। গেমটি খেলে কেমন লাগল জানাবেন। আরো জানাবেন, আমার এই সিরিজ কেমন লাগছে। কি ধরণের গেম গুলো আপনাদের বেশি প্রিয় সেগুলোও জানাবেন। আশা করছি সামনে আরো সুন্দর ও মানসম্মত গেম উপহার দিতে পারব আমার এই সিরিজে।
পরের পর্ব নিয়ে খুব শীঘ্রই আসছি ইংশা আল্লাহ। সবার সুস্থতা কামনা করে শেষ করছি আজকের এই পোস্ট। আগামী কাল আমার বার্ষিক পরীক্ষার ফলাফল। সবাই আমার জন্য দুআ করবেন।
আল্লাহ হাফেজ।
 

Download Search Everything | সার্চ এভ্রিথিংক | 3G স্পিডে আপনার কম্পিউটারে ফাইল খুজুন !!!!!

 Download Search Everything | সার্চ এভ্রিথিংক | 3G স্পিডে আপনার কম্পিউটারে ফাইল খুজুন !!!!!
.

Search Everything সার্চ এভ্রিথিংক । 3G স্পিডে আপনার কম্পিউটারে ফাইল খুজুন!!!!!

আসসালামু আলাইকুম,

কেমন আছেন বন্ধুরা আশা করি সবাই ভাল আছেন। আজকে আমি আপনাদের সাথে একটি  কম্পিউটার সফটয়্যার নিয়ে আলোচনা করব। সফটয়্যারটির নাম হচ্ছে Search Everything। এটি একটি পিসি সার্চ ইঞ্জিন। এর দ্বারা আপনি খুব সহজেই আপনার নির্দিষ্ট ফাইলটি খুজে নিতে পারবেন আপনার কম্পিউটার  থেকে। তবে হ্যা আপনার ফাইলটির নাম  সঠিক ভাবে লিখে দিতে হবে। এর একটি সুবিধা হল আপনার কম্পিউটারে হাইট করা ফা্ইল ও শো করে।

 এটি ইনষ্টল করা খুবই সহজ। আশা করি ইনষ্টল করতে পারেন না এমন কেউ নেই । ঠিক মত ইনষ্টল করলে আপনার  সামনে এমন একটি উইন্ডো আসবে।
সফটয়্যারটি ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক
কোন ধরনের সমস্যা হলে কমেন্ট করে জানান এবং আপনার বন্ধুদের শেয়ার করে জানিয়ে দিন।
আবার ও আপনাদের মাঝে ফিরে আসবো নতুন কোন তথ্য নিয়ে।
ধন্যবাদ!!!!!
আমার সম্পর্কে
জানতে ফেসবুক 

১ ওয়াট এলইডিএর ডিমার বানাও

১ ওয়াট এলইডিএর ডিমার বানাও


আমার এক বন্ধু আমাকে এলইডি এর ব্রাইটনেস কন্ট্রোলার তৈরি করতে বলেছিলো।
তার টেবিল ল্যাম্পের ব্রাইটনেস কন্ট্রোল করার জন্য।
সে ৫৫৫ আইসি দিয়ে পিডব্লিউএম বা পালস ওয়াইডথ মডুলেটর সার্কিট তৈরির চেষ্টা করেছিলো, কিন্তু সামান্য কাজের জন্য একটা কমপ্লেক্স সার্কিট সে তৈরি করতে চাচ্ছিলো না।
আমি তাকে ভলিউম (পটেনশিওমিটার) এবং ট্রান্সজিস্টার ব্যাবহার করে কাজটা করতে বলেছিলাম।



এই ডিমারটি ১ ওয়াটের একটা এলইডি ড্রাইভ করতে পারে।

এই এলইডি এর কালার টেম্পারেচার বেশি তা চোখের জন্য বেশ আরামদায়ক, আমি তাই আমার টেবিল ল্যাম্পের টিউব রিপ্লেস করে এগুলো বসিয়েছি।
1w LED with Heatsink

এই ১ ওয়াট এলইডি নিয়ে কিছু তথ্য,

Forward Voltage:3.0V – 3.4V
Angle:110 deg
Luminous Flux (lm):110 – 130
Color Temp:2700K – 3300K





এখানে আমি বিসি৫৪৭ ব্যাবহার করেছি কারণ এর ব্যাবহার এবং অপারেশন সহজ। কিন্তু যেকোনো এনপিএন ট্রানজিস্টার ব্যাবহার করা যাবে।
একটা এনপিএন ট্রাঞ্জিস্টরের সুইচ করতে পজিটিভ ভোল্টেজ লাগে।
যখন ট্রাঞ্জিস্টরের বেস থেকে পজিটিভের সাথে যুক্ত তারের রোধ বা রেসিস্ট্যান্স গ্রাউন্ডের বা নেগেটিভের সাথে লাগানো তার হতে বেশি থাকে তখন ট্রাঞ্জিস্টর দুর্বল বা হালকা আউটপুট দেয়।
আবার এর উলটো বা নেগেটীভের সাথে রিসিসট্যান্স বেশি হলে তুলনামুলক বেশি আউটপুট ভোল্টেজ দেয়।
তাই আমরা দুই পাশের রিসিস্ট্যান্স ভ্যারি করার জন্য পটেনশিওমিটার ব্যাবহার করেছি।
আমি এই প্রোজেক্টের একটা ভিডিও করে রেখেছি, তোমরা চাইলে তা দেখতে পারো।

Project Video:



Project Image:


ফেসবুক মেসেঞ্জারে যুক্ত হলো ‘ইভেন্ট রিমাইন্ডার’

ফেসবুক মেসেঞ্জারে যুক্ত হলো ‘ইভেন্ট রিমাইন্ডার’



ফেসবুক মেসেঞ্জার অ্যাপে নতুন ফিচার যুক্ত করা হয়েছে। ‘রিমাইন্ডার’ নামের নতুন এই ফিচারের মাধ্যমে অ্যাপের মধ্যে যেকোনো নির্দিষ্ট ইভেন্টের রিমাইন্ডার দিয়ে রাখতে পারবেন ব্যবহারকারীরা। 
পরবর্তীতে মেসেঞ্জার ঐ ইভেন্টের কথা এলারমের মতো মনে করিয়ে দিবে।

ব্যবহারকারী ‘আগামীকাল সকাল ৭টায় ঘুম থেকে উঠতে হবে’ এই মেসেজ মেসেঞ্জারে লেখার সাথে সাথে অ্যাপটি স্বয়ংক্রিয়ভাবে ঐ তারিখ ও সময়ের রিমাইন্ডার সেটিং অপশন দেখাবে। ফিচারটি রিমাইন্ডার সেট করেই সীমাবদ্ধ থাকে না, ব্যবহারকারীর ইচ্ছেমতো তারিখ ও সময় পরিবর্তন করার ক্ষমতাও রাখে।

মেসেঞ্জার বন্ধ করে স্মার্টফোনের ক্লক অ্যাপ্লিকেশনে গিয়ে অ্যালার্ম ঠিক করার ঝক্কি না নিয়ে খুব সহজেই অ্যাপটিতে তারিখ ও সময় লিখে রিমাইন্ডার ঠিক করার সুযোগ পাবেন মেসেঞ্জার ব্যবহারকারীরা।

priyo.com

চার ওয়াট পাওয়ারের একটা ইউএসবি ল্যাম্প বানাও

চার ওয়াট পাওয়ারের একটা ইউএসবি ল্যাম্প বানাও









আবার এলাম আমি, আরেকটি ইউএসবি গ্যাজেট নিয়ে। এটি একটি ৪ ওয়াটের ইউএসবি এলইডি ল্যাম্প।
এরকম ল্যাম্প অত্যন্ত কাজের।
আমরা এগুলো যেকোনো স্থানে ইউএসবি পাওয়ার ব্যাঙ্ক, ল্যাপ্টপ, ওটিজি বা পাওয়ার সাপ্লাই দিয়ে চালাতে পারি।
এর ক্ষমতাও বেশি, ৪ ওয়াট। একটি শক্তিশালী টেবিল ল্যাম্পের মতো।
রাতের বেলা যারা জেগে জেগে কাজ করো, তারা এটা ব্যাবহার করতে পারো। কারন এর ক্ষমতা এনার্জি সেভিং লাইট (সিএফএল) থেকে কম, যা আরও বেশি বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী।
ভিডিও টিউটোরিয়াল দেখতে পারো অথবা পোস্টের শেষে ইম্বেড করা আছে সেটি


Things you need

এই ইউএসবি গ্যাজেট বানাতে তোমার লাগবে,

  1. সলিড লোহার তাঁর
  2. কানেকশান দেওয়ার তাঁর (সলিড হলে ভালো)
  3. ১০ ওহমের রিসিস্টর
  4. ভেরো বোর্ড
  5. চারটি এক ওয়াটের সিঙ্গেল চিপ এলইডি (পাথর বাতি)
  6. ইউএসবি ডাটা ক্যাবল
  7. রোল অন পারফিউমের বোতলের রোল অন বল
এখানে ডায়াগ্রাম
Schematic






ছোট গেমস মজা বেশি(পর্ব-২৯): স্টিক ক্রিকেট(৪০ মেগাবাইট/অ্যান্ড্রয়েড)(পিসি ভার্সন অনলাইন গেম সংযুক্ত)+স্টিক ক্রিকেট প্রিমিয়ার লীগ

ছোট গেমস মজা বেশি(পর্ব-২৯): স্টিক ক্রিকেট(৪০ মেগাবাইট/অ্যান্ড্রয়েড)(পিসি ভার্সন অনলাইন গেম সংযুক্ত)+স্টিক ক্রিকেট প্রিমিয়ার লীগ
আসসালামু আলাইকুম। শীতের সকালের গরম গরম ভাপা পিঠার শুভেচ্ছা।

স্টিক ক্রিকেট

আগের পোস্টের ঘোষণা অনুযায়ী আমি আজ নিয়ে এসেছি একটি এন্ড্রয়েড গেম, স্টিক ক্রিকেট। এটার অনলাইন গেমও আছে পিসির জন্য। বলছিনা, কল অফ ডিউটি এর আধুনিক ভার্সনগুলো, জিটিএ ৪, জিটিএ ৫, ওয়াচ ডগসের মত গেমগুলো কখনো আমার খেলতে ইচ্ছা হয় না। কিন্তু সত্যি বলছি, আমার ২ জিবি র‍্যামের পিসিতে এগুলো চলে না বলে কখনো মন খারাপ হয়নি। সব ইচ্ছা তো আর পূর্ণ হয় না।
কিন্তু এবার সত্যি দুঃখ হয়েছে, যখন জেনেছি আপকামিং ডন ব্র্যাডম্যান ক্রিকেট ১৭ আমার পিসিতে সাপোর্ট করবে না বা বর্তমানের জনপ্রিয় অ্যান্ড্রয়েড ক্রিকেট গেম, ওয়ার্ল্ড ক্রিকেট চ্যাম্পিয়নশিপ আমার মায়ের মোবাইলের ৫১২ মেগাবাইট র‍্যামে সাপোর্ট নিবে না। শুধু এটা খেলার জন্য ব্লুস্টাক নিসিলাম। কিন্তু ব্লুস্টাক দিয়ে পিসিতেও চলল না। আর ২ জিবি র‍্যামের পিসিতে ব্লুস্টাকই তো সাপোর্ট নিতে চায় না। দুঃখ এত বেশি, পকেটে আটে না :'(আর চাইলেই তো পিসি আপডেট করে ৮ জিবি র‍্যাম লাগিয়ে নিতে পারি না বা নতুন ফোনও কিনতে পারি না।
তাই আবার লো কনফিগ গেমের পথেই হাঁটি। থাউক, লাগবে না ওয়ার্ল্ড ক্রিকেট চ্যাম্পিয়নশীপের গ্রাফিক্স, বোলিং, ডিআরএস, কমেন্ট্রি। আমার স্টিক ক্রিকেটই আমার জন্য ভাল। ইহা পিসি এবং এন্ড্রয়েড উভয় প্লাটফর্মেই খেলা যায়।
এই গেমটার একটা বৈশিষ্ট্য হল, কেবল ব্যাটিংই করতে পারবেন। বোলিং নাই, কমেন্ট্রি নাই, ওয়াইড নাই, নো-বল নাই, বিভিন্ন এঙ্গেলের ক্যামেরা নাই, রিয়েলাস্টিক গ্রাফিক্স নাই, নাইয়ের লিস্ট অনেক বড়। কিন্তু, গেমটি খেলতে বোর হবেন না কখনোই!
Cover art
ভাবছন, এটা কেমন গেম? না খেললে বুঝবেন না এই গেমের মজা।
সব ক্রিকেট গেমের একটা বড় সমস্যা হল, ব্যাটিং খুব সোজা। টার্গেট পার করে আরো ওভার বেঁচেই থাকে। তাই সব ডেভেলোপার চেষ্টা করে ব্যাটিং কঠিন করতে। কিন্তু কিসে কি? যতই কঠিন করুক, গ্যাপ থেকেই যায়। হয়ত, দুই তিনটা নির্দিষ্ট শট আয়ত্বে আনলেই বলে বলে ৬ হবে।
এই গেমটা এ দিক দিয়ে ব্যতিক্রম। ডেভেলোপাররা ব্যাটিংকে সহজ না করে অন্য রাস্তায় হেঁটেছে। সরাসরি বলেই দিয়েছে, 'HIT EVERY BALL FOR SIX."
   Stick Cricket- screenshot
এটা সত্য, সব বলেই ছয় তো ঠিকই মারতে পারবেন। কিন্তু প্যাচটা অন্যখানে। ওভারে ২৭-২৮ যখন রিকোয়ার্ড রেট দেখবেন, তখন এই মজাটা ফুরুত হয়ে যাবে।
গেমটিতে ৩৬০ ডিগ্রি শট নাই। আপনার স্ক্রিণের দুই দিকে দুটো বাটন পাবেন। সেখানে সময়মত সঠিক দিকে ট্যাপ করেই দেখাতে হবে চার ছক্কার ফুলঝুরি। এটাও কিন্তু সবসময় খুব সহজ না। যখন পেসাররা আগুনের গতিতে বল ছুরবে, আর স্পিনাররা অফ সাইডের বল লেগ সাইডে ঘুরিয়ে দিবে, তখন টের পাবেন।
গেমের ডেভেলোপাররা একটি কথা লিখে দিয়েছেন প্লে স্টোরে গেমের বর্ণনায়, 'Easy to play, hard to master'. কথাটা মাথায় রেখেই খেলতে হবে।
গেমটির অ্যান্ড্রয়েড ভার্সনে বেশ কিছু আলাদা আলাদা মোড আছে, আর পিসির জন্য রয়েছে ভিন্ন ভিন্ন গেম। অ্যান্ড্রয়েডের গেমটি ফ্রি হলেও ফ্রি গেমটিতে প্রায় সবকিছুই লক করা তাই আনব্লকড ভার্সন ডিয়েছি আমি(ডাউনলোড লিংক পোস্টের শেষে)। নিচে গেমের মোডগুলো এবং প্রত্যেকটি মোডের পিসিতে খেলার জন্য অনলাইন গেমের লিংক দেওয়া হল।

বিশ্ব দমন(World Domination)

হারিয়ে দিন পৃথিবীর সব দলকে! এখানে আপনি খেলবেন অল স্টারস দলের হয়েছে। যে দলটা তৈরি হয়েছে বিশ্বের সর্বকালের সেরাদের নিয়ে। এখানে কিন্তু আপনাকে নিজের দেশের বিপক্ষেও খেলতে হবে! পিসিতে খেলতে এখানে যান।

সব তারকাঘাত(All Stars Slog)

এখানে আপনি আপনার দেশকে নিয়ে খেলতে পারবেন বিশ্বের সর্বকালের সেরাদের দল অল স্টারসের বিপক্ষে। পিসিতে খেলতে এখানে যান।

বিশ্বকাপ(World Cup Edition)

বিশ্ব ক্রিকেটের সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ আসরে নেমে পড়ুন আপনার দলের জয় নিশ্চিত করতে! ৫০ ওভারের বদলে অবশ্য খেলতে হবে ৫ ওভার। পিসিতে খেলতে এখানে যান।

বিশ্ব চা-২(World T-2)

এখন কি আর সেই যুগ আছে? এখন টি-টুয়েন্টি দেখতে মানুষ হাঁপিয়ে যায়। তাই নেমে পড়ুন এই বাংলার মাটিতে(গেমের বর্ণনা অনুযায়ী, তবে আপনার পরিচিত স্টেডিয়ামগুলো খুঁজবেন না যেন!) এক উত্তেজনাকর টি-টু বিশ্বকাপের জন্য। পিসিতে খেলতে এখানে যান।

দক্ষতা পরীক্ষা(Skill Test)

১৫টি দক্ষতার পরীক্ষা দিয়ে যাচাই করুন আপনি গেমটির গুরু হতে পেরেছেন কিনা। বলা হয়েছে, ১৫ টি টেস্ট জিতলে কোচের পক্ষ থেকে একটি পুরস্কার আছে। সেটি কি আমি জানি না। কেন না ১০ নাম্বার দক্ষতা পরীক্ষাতে গিয়েই আটকে গেছি :( পিসিতে খেলতে এখানে যান।

মুক্ত অনুশীলন(Free Practice)

আপনার দক্ষতায় শান দিন! সেজন্য প্রাকটিস তো অবশ্যই প্রয়োজন! পিসিতে খেলতে এখানে যান।

দুই খেলোয়াড়(Two Player)

সবচেয়ে আগ্রহজনক ফিচার সম্ভবত এটি। আপনার ও আপনার বন্ধুর(বা দুশমনের) মোবাইলে গেমটি ইন্সটল করে নিন। এরপর নীল দন্ত(Bluetooth) চালু করে নেমে পড়ুন! আমি ট্রাই করে দেখতে পারি নি অবশ্য। কারণ এই মোডে খেলার মত আরেকজনকে খুঁজে পাইনি :'(পিসির জন্য এটি নেই।

ডাউনলোড

সম্পূর্ণ গেমটি এন্ড্রয়েডের জন্য ডাউনলোড করুন এখান থেকে।

স্টিক ক্রিকেট প্রিমিয়ার লীগ

স্টিক ক্রিকেট প্রিমিয়ার লীগ গেমটি ডাউনলোড করলে আপনি প্রিমিয়ার লীগ অস্ট্রেলিয়া (বিগ ব্যাশ) ও প্রিমিয়ার লীগ ইন্ডিয়া (আইপিএল) মোডে খেলতে পারবেন। আপনার অধিনায়ককে প্রস্তুত করুন, ইচ্ছা হলে দলের জন্য ক্রয় করুন তারকা খেলোয়াড়দের বা ব্যক্তিগত কোচকে, অসৎপন্থায় জিততে চাইলে ইন্ডিয়ান লীগে ম্যাচ ফিক্সার :P দের সাথেও যোগাযোগ রাখুন অথবা অস্ট্রেলিয়ান লীগে যোগাযোগ করুন ডাক্তারের সাথে, তিনি কিছু অর্থের বিনিময়ে আপনার জন্য বিপক্ষ দলের  খেলোয়াড়দের দুর্বল করার চিকিৎসা করে দিবেন :P ভাল তো, ভাল না?

ডাউনলোড

বিদায়

কেমন লাগলো আজকের এই পোস্ট এবং গেমগুলো? কমেন্ট বক্স কিন্তু অধীর আগ্রহে অপেক্ষারত আপনার কমেন্ট বক্সের জন্য। তাকে নিরাশ করবেন না প্লিজ :) আপনাদের প্রতিটি কমেন্ট আমার এগিয়ে যাওয়ার প্রেরণা।
আজকের পোস্ট এখানেই শেষ করছি।
আল্লাহ হাফেজ।

IC 555 দিয়ে বাই পোলার এলইডি ড্রাইভার বানাও

IC 555 দিয়ে বাই পোলার এলইডি ড্রাইভার বানাও

৫৫৫ আইসি দিয়ে বাই পোলার এলইডি ড্রাইভার



আজকের টিউটোরিয়ালে আমরা ৫৫৫ টাইমার আইসি ইউজ করে একটি বাই পোলার এলইডি ড্রাইভার সার্কিট তৈরি করতে শিখবো।
এই প্রোজেক্টটি যারা কেবল নতুন এবং আগ্রহী তাদের জন্য, অন্যথা কমেন্টে "আমি এটা জানি" কিংবা "সব্বাই জানে এটা" বইলা আওয়াজ না করার জন্য বিনীত ভাবে অনুরোধ করছি।
কিন্তু টিউটোরিয়াল শুরুর আগে আমাদের বাই পোলার এলইডি নিয়ে জানা দরকার।

বাই পোলার এলইডি হলো এমন এক ধরনের এলইডি যা দুইটি পোলারিটীই কাজে আসে, অর্থাৎ এতে দুইভাবে কারেন্ট বায়াস দিলে দুইভাবে কাজ করে থাকে।
যেমন পজিটিভ এবং নেগেটিভ বায়াস দিলে হলুদ এবং নেগেটিভ ও পজিটীভ (উলটে দিলে) বায়াস দিলে লাল আলো নিঃসরণ করে।
YELLOW for PN
RED for NP
Bi Polar LED Schematic Symbol

আশা করি বুঝতে পেরেছো বাই পোলার এলইডিএর কাজ? 
এটা মুলত টিভি, কম্পিউটার ইত্যাদি ডিভাইজের ডায়াগনস্টিক এলইডি হিসেবে ব্যাবহার করা হয়।

একটা সাধারন বাই পোলার এলইডি ড্রাইভার বানানোর জন্য তোমরা ৫৫৫ আইসি ইউজ করতে পারো যা আমি নিচের ভিডিও টিউটোরিয়ালে ইউজ করেছি।




এই সার্কিটে ৫৫৫ আইসিতে ২ নাম্বার পিনে, যার নাম "ট্রিগার", সেখান থেকে একটি ক্যাপাসিটর গ্রাউন্ডে বা নেগেটিভে চলে গেছে।
এর দ্বারা আমরা আউপুট সিগন্যাল নিয়ন্ত্রন করতে পারি।
ক্যাপাসিটরের মান বাড়লে আউটপুটের গতি কমবে, এবং মান কমলে আউটপুটের গতি বাড়বে।
এখানে ৫৫৫ আইসিটি, অ্যাস্টেবল মোডে কাজ করছে, যার মানে একটি ক্লিন আউটপুট, যার কোনো মাঝে মাঝে বিরতি নেই। একনাগাড়ে করে যাবে।

Bi Polar LED


Circuit Schematic


Circuit with Potentiometer





তুমি যদি ভলিউম (পটেনশিওমিটার) দিয়ে স্পীড কন্ট্রোল করত্যে না চাও তবে নিচের ডায়াগ্রাম ব্যাবহার করতে পারো।
Circuit without Potentiometer

ছোট গেমস মজা বেশি(পর্ব-২৮): বাস ড্রাইভার

ছোট গেমস মজা বেশি(পর্ব-২৮): বাস ড্রাইভার
আসসালামু আলাইকুম। কেমন আছেন? আশা করছি আল্লাহ তায়ালার অশেষ রহমতে সবাই ভাল এবং সুস্থ আছেন। আমিও আলহামদুলিল্লাহ. আল্লাহ ভাল রেখেছেন।

আজকের গেম

আজ আমি নিয়ে এসেছি ২০০৭ সালে রিলিজ পাওয়া একটি গেম, বাস ড্রাইভার। এই গেম খেললে আপনি অবশ্যই তীব্র গরমের দিনে ভাঙা রাস্তায় ড্রাইভাররা কত কষ্টে বাস চালায় বুঝতে পারবেন না, কিন্তু এটুকু বুঝতে খুব বেশি কষ্ট হবে না যে, বাস চালানোটা খুব বেশি সহজ কাজও নয়। যদিও এখানে আপনাকে উঁচুনিচু রাস্তায় আঁকাবাঁকা পথে চলতে হবে না, রাস্তায় খুব যানজটও নেই বাংলাদেশের মত, তবুও সময়মত দুর্ঘটনা না ঘটিয়ে যাত্রীদের পৌছে দেওয়ার কাজটা খুব সহজ নয়। গেমটি তৈরি করেছে আমাদের স্মৃতির পাতায় অমর এসসিএস সফটওয়্যার। পাবলিশ করেছে এসসিএস সফটওয়্যার ও মেরিডিয়ান ফোর।
 

এক নজরে

গেমের নাম
বাস ড্রাইভার
ডেভেলোপার
SCS Software
পাবলিশার
Meridian4
প্লাটফর্ম
আইওএস
মাইক্রোসফট উইন্ডোজ
ওএস এক্স
প্রকাশের তারিখ
২২শে মার্চ ২০০৭ (উইন্ডোজ)
ধরণ
গাড়ি চালনা

গেম সম্পর্কে

এই গেমে আপনার কাজ বাস চালিয়ে যাত্রীদের সময়মত তাদের গন্তব্যে পৌছে দেওয়া। প্রথমে কাজটি খুব সহজ হবে না।
  Bus Driver Screenshot 1 
 প্রচুর এক্সিডেন্ট হবে আর নিয়মগুলো বুঝতে কিছুটা সময় লাগবে। এক্সিডেন্ট করলে বা কোন কিছুতে ধাক্কা দিলে বাসের যাত্রীরা নাখোশ হবে এবং পয়েন্ট কাটা যাবে। আবার বিভিন্ন নিয়ম কানুনও মেনে চলতে হবে। রাস্তায় লাল বাতি জ্বললে থামতে হবে, নাহলে ২০০ পয়েন্ট ঘ্যাচাং হয়ে যাবে। সময়মত গাড়ি চালাতে হবে। সময়ের পূর্বে গাড়ি ছাড়া যাবে না। এরকম বিভিন্ন নিয়ম মেনে চলতে হবে। নিয়ম মানলে পয়েন্ট পাবেন আর যাত্রীরা থাকবে হাসিখুশি।
 
বিভিন্ন ধরণের রাস্তায় বাস চালাতে হবে। তুষারঘেরা রাস্তায় গাড়ি চালাতে পাবেন অন্য রকম অনুভূতি।
  Image result for Bus Driver Game 
 আর চালাতে পারবেন বিভিন্ন ধরণের বাস। বিআরটিসির মত(!) ডাবল ডেকার বাসও আছে গেমটিতে।
  Image result for Bus Driver Game   
গেমটিতে কাঠিন্যের ভিত্তিতে ৬ টায়ারে ভাগ হয়ে ৬ টি করে মোট ৩৬ টি রুট আছে। পূর্বের টায়ারগুলোতে ভাল করে পরবর্তীগুলো আনলক করতে হবে।

খেলার নিয়ম

গেমের ভেতরে তো দেওয়াই আছে। আমি এখানে কন্ট্রোলগুলোর একটি স্ক্রিনশট দিয়ে দিলাম। চাইলে পরিবর্তন করে নিতে পারবেন। এছাড়াও কন্ট্রোলার দিয়ে খেলা যাবে।
 

আমার রেটিং

আমার কাছে এই গেমটি বেশ ভাল লেগেছে। গেমটি নিয়ে আমার রেটিং- গ্রাফিক্স: ৭/১০ কন্ট্রোল: ৮/১০ অভারঅল: ৭/১০(এখানে গ্রাফিক্স এবং কন্ট্রোল ব্যাতীত অন্যান্য বিষয়ও বিবেচনা করা হয়েছে।)

ডাউনলোড

গেমটি যদি ভাল মনে হয়, তাহলে ডাউনলোড করে গেমটি খেলে দেখুন। গেমটির সাইজ অবশ্য একটু বড়, ৭৮ মেগাবাইট। কিন্তু খুব বেশি না, নয় কি?

আপনার মতামত

কেমন লাগলো আজকের এই গেমটি? আর কেমন লাগছে আমার এই সিরিজ? আজকের পোস্ট, আজকের গেম, এই সিরিজ প্রভৃতি সংক্রান্ত্র আপনার মতামত জানতে অপেক্ষায় আছি আমি এবং নিচের কমেন্ট বক্স। আশা করি আমাদের নিরাশ করবেন না। আপনার মতামত কমেন্ট করতে ভুলবেন না। ছোট গেমস মজা বেশি সিরিজটি আস্তে আস্তে এগিয়ে চলেছে। আমি এটাকে আরো এগিয়ে নিতে চাই। সেজন্য আপনার পছন্দের এন্ড্রয়েড বা পিসির ছোটখাট গেমগুলোর কথা কমেন্ট বক্সে জানাতে পারেন। সম্ভব হলে সেগুলো নিয়ে পোস্ট করে সবার সাথে শেয়ার করব।

আগামী পর্বগুলো

ইচ্ছা আছে আগামী কিছু পর্বে এন্ড্রয়েড গেমস থাকবে। তাই এন্ড্রয়েড ব্যবহারকারীরা প্রস্তুত থাকুন!

ছোট গেমস মজা বেশি সিরিজ সম্বন্ধে

জিটিএ ফাইভ আর ওয়াচ ডগসের যুগে হয়ত আমার এই সিরিজ বড়ই বেমানান। কিন্তু আমাদের সবার পক্ষে তো আর এসব গেমগুলো খেলার উপযোগী পিসি নেই, বা এগুলোর ইভেন পাইরেটেড কপি কেনার বা ডাউনলোড করার সামর্থ্য নেই। আর নতুন যা কিছুই আসুক না কেন OLD IS GOLD. তাই নতুন ছোটখাট গেমগুলো এবং পুরনো কালের গেমগুলো নিয়ে এগিয়ে চলেছি আমার সিরিজ, "ছোট গেমস মজা বেশি"।

বিদায়!

আজকের পোস্ট আমি এখানেই শেষ করছি। আশা করি দ্রুতই আবার ফিরে আসব। আল্লাহ তায়ালা আমাদের সবাইকে ভাল ও সুস্থ রাখুক এই কামনা করছি। আল্লাহ হাফেজ।