ওয়ার্ল্ড অব ওয়ারশিপস

অনলাইন মাল্টিপ্লেয়ার গেম ‘ওয়ার্ল্ড অব ওয়ারশিপস’।




পিসি রিকোয়ারমেন্টঃ

  • প্রসেসর : ৩ গিগাহার্জ ডুয়াল কোর
  • র‌্যাম : ৪ গিগাবাইট, 
  • গ্রাফিকস কার্ড : ডাইরেক্ট এক্স-৯, ৪ জিবি 
  • ফ্রি হার্ডডিস্ক স্পেস : ৫ গিগাবাইট।

প্ল্যাটফর্মঃ

 আকর্ষণীয় গ্রাফিকসের গেমটি এক্সবক্স ৩৬০, প্লে স্টেশন ৪ এবং মাইক্রোসফট উইন্ডোজচালিত পিসিসহ প্রায় সব ধরনের গেমিং ডিভাইসে সমানতালে উপভোগ করা যাবে ‘ওয়ার্ল্ড অব ওয়ারশিপস’। 

প্লটঃ

বিংশ শতাব্দীর কোনো এক সময়। বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মধ্যে পরিবহনে সবচেয়ে নিরাপদ এবং জনপ্রিয় মাধ্যম হয়ে উঠেছে সমুদ্রপথ। যে পথে প্রতিদিন আসা যাওয়া করে শত শত পণ্যবাহী সমুদ্র জাহাজ। তবে নিরাপদ সমুদ্রপথ সব সময় নিরাপদ থাকে না। কখনো কখনো পরিণত হয় মৃত্যুফাঁদে। এ পথে জাহাজ এগোতে হলে পড়তে হয় জলদস্যুদের কবলে। তাই সমুদ্রপথকে আরো নিরাপদ করার উদ্যোগ নেয় পৃথিবীর ক্ষমতাধর সব রাষ্ট্র। তবে উদ্যোগ সফল হওয়ার পরিবর্তে উল্টোটা ঘটে। পরস্পরের ওপর দোষারোপ করে ক্ষান্ত হয় তারা। অবশেষে ক্ষমতাধর এসব রাষ্ট্রের মধ্যে যুদ্ধ বেঁধে যায়। ফলে সম্পূর্ণ অনিশ্চিত এবং অনিরাপদ হয়ে পড়ে সমুদ্রপথ।
এমন প্রেক্ষাপটে একজন গেমারকে অবতীর্ণ হতে হবে নৌসেনার বেশে।
এ সময় গেমারকে সমুদ্রসীমা জয়ের লক্ষ্যে যেকোনো ক্ষমতাধর একটি রাষ্ট্রের হয়ে লড়তে হবে অন্য রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে। গেমারকে খেলতে হবে নির্দিষ্ট মানচিত্র জয়ের লক্ষ্যে। যেখানে জাহাজের মাধ্যমে লড়াই করে জয় করতে হবে নির্দিষ্ট সমুদ্রসীমা।
গেমটিতে গেমারকে লড়াই করতে হবে যথাক্রমে ডেস্ট্রয়ারস, ক্রইসারস, ব্যাটলশিপস ও এয়ারক্র্যাফট ক্যারিয়ারস নামে পৃথম চার ধরনের যুদ্ধজাহাজ নিয়ে। শত্রুদের যুদ্ধজাহাজ ধ্বংস করে এগিয়ে যেতেই গেমার পাবে বোনাস পয়েন্ট কারেন্সি। আর এ কারেন্সি দিয়ে কেনা যাবে জাহাজ এবং আন-লক হবে গেমের নতুন প্রেক্ষাপট। গেমারকে সহযোগিতায় থাকছে বিশেষ ম্যাপিং ব্যবস্থা। গেমটি শুধু মাল্টিপ্লেয়ার মোডে উপভোগ করা যাবে। গেমটি উপভোগ করতে প্রয়োজন হবে ইন্টারনেট সংযোগ। 

মূল পোস্টঃ  http://www.dailynayadiganta.com/detail/news/40535#sthash.PSOQlIec.dpuf

শেয়ার করুন

লেখকঃ

আমি তাওসিফ তুরাবি, অনলাইনাম (অনলাইন + নাম) ব্লগার তাওসিফ। এখন, ২০১৬ পর্যন্ত আমি ১৬ বছরের এক কিশোর। পড়াশোনা করি শহীদ পুলিশ স্মৃতি কলেজে। টেক ব্লগ লিখতে ভালবাসি। সাইন্স ফিকশন আর গল্প লিখতে পছন্দ করি।  জিআর+ ব্লগের এর একজন প্রতিষ্ঠাতা অ্যাডমিন।
আমাদের একটা ওয়েব ডেভেলপার ফার্ম আছে যার নাম জিআর+ আইটি বাংলাদেশ
এছাড়া আমার ব্যাক্তিগত ব্লগ রয়েছে। আমার ফেসবুক আইডিতে আমার সাথে সর্বক্ষণ যোগাযোগ করতে পারবেন। 


পূর্ববর্তী পোষ্ট
পরবর্তী পোষ্ট