তিন গোয়েন্দা রিভিউ (পর্ব-৩): প্রথম কেস

আসসালামু আলাইকুম।
এই সিরিজের অন্যান্য পোস্টগুলো-

তিন গোয়েন্দা রিভিউ (পর্ব-২): যেভাবে এলো চরিত্রগুলো

এই পর্বটি পড়ার আগে দুই নং পর্বটি পড়া থাকলে ভালো হয়।
রবার্ট আর্থার জুনিয়রের "The Three Investigators" এর প্রথম কেস ছিলো দি সিক্রেট অব দি টেরর ক্যাসল। তিন গোয়েন্দারও প্রথম কেস সেটিই।
রকিব হাসান তিন গোয়েন্দা নামেই প্রথম পর্ব লিখেছিলেন। আর কোন নাম দেননি। পুরো ফ্রেশ অনুবাদ বলা যায়। খুব একটা পরিবর্তন নেই, শুধু নামগুলো ছাড়া।
রেন্ট এ রাইড কোম্পানীর একটি প্রতিযোগিতায় ৩০ দিনের জন্য রোলস রয়েস নামের এক অতি বিলাসবহুল গাড়ি জিতে নেয় কিশোর। তার উপর স্কুলে ছুটি। তাই সে তার দুই ঘনিষ্ট বন্ধুকে নিয়ে শুরু করে তিন গোয়েন্দার যাত্রা। তার চাচার স্যালভিজ ইয়ার্ডের একটি পুরনো নষ্ট ছাপার মেশিন ঠিক করে ফেলে কিশোর এবং মুসা কার্ড ছাপায় তিন গোয়েন্দার।
 
মানুষের মনে প্রশ্ন জাগানোসহ একাধিক কারণে তিনটি প্রশ্নচিহ্ন রাখে কার্ডে। কিশোরের জানা ছিলো একটি ভূতুড়ে বাড়ি খুঁজছেন বিখ্যাত পরিচালক ডেভিড ক্রিস্টোফার। কিন্তু তার সাথে দেখা করা প্রায় অসম্ভব। কিন্তু কৌশলী কিশোর ঠিকই দেখা করে পরিচালককে রাজি করিয়ে ফেলেন তাদের কাজ দিতে। এরপর লেগে গেলো টেরর কেসল নামক এক ভূতুড়ে বাড়ির রহস্য উদঘাটনে। আবিষ্কার করলো সে বাড়ি নিয়ে প্রচারিত সব গুজব সত্য। সত্যি সেখানে দেখা যায় নীল ভূত, বেজে উঠে পাইপ অর্গান আর মস্তিষ্কের উপর কোনভাবে অদ্ভুত প্রতিক্রিয়া করে বাড়িটা। কিন্তু কিভাবে সম্ভব???
ভলিউম ১ এর তিনটি কাহিনীর প্রথম গল্প এই কেস নিয়ে।
https://www.dropbox.com/s/jycymrnmnfc9jwj/volume1-1.rar?m
ডাউনলোড করতে ছবিতে ক্লিক করুন।

শেয়ার করুন

লেখকঃ

আমি দুইটি করে হাত, পা কান, চোখ বিশিষ্ট একজন মানুষ। নাম তাহমিদ হাসান মুত্তাকী। আমি একজন মুসলিম। বাংলাদেশের অধিবাসী। বয়স ১৫ বছর। নবম শ্রেণিতে পড়ি।। গ্রিন রেঞ্জারস+ এর প্রতিষ্ঠাতাদের একজন। আমাকে ফেসবুকে পেতে এখানে যান।

Image result for facebook.icon 30x30   Image result for Google Plus.icon 30x30

পূর্ববর্তী পোষ্ট
পরবর্তী পোষ্ট