আমদের নতুন যুগের তরুন বাঙ্গালি ইন্টারনেট কোথায় ব্যাবহার করে?

বাংলাদেশ, এ এক অপরূপ সৌন্দর্যের চরনভুমি। দক্ষিণ এশিয়ার এক জনবহুল রাষ্ট্র। আয়তন ১.৪৭.৫৭০ বর্গ কিলোমিটার। ....................




জানেনই বোধহয়, না জানলে এখান থেকে জানতে পারেন উইকিপিডিয়া


এদেশের মানুষ অত্তন্ত সহজ সরল। এদেশের মানুষ শান্তিপ্রিয়। তারা বেশ বিদ্রোহীয়। এদেশের প্রত্যেক ঐপনিবেশকে তারা সাহসিকতার সাথে এদেশ থেকে তাড়িয়েছে। এমনকি একাত্তর সালে ৩০ লক্ষ প্রানের বিনিময়ে স্বাধীনতাও কেড়ে এনেছে। আমরা তাদের শ্রদ্ধা জানাই।


ভাই একটু থামবেন? আমি কিছু কবাম (!) ...........



এখন চলছে ডিজিটালের যুগ। মানুষের বগলে ট্যাব, পিঠে ল্যাপটপ। কানে হেডফোন, হাতে মোবাইল। সবাই এক আজব চিযে আছে। ইন্টারনেট। যাকেই ধরি, "ভাই নেটে কি করেন ?" সে মিষ্টি বা ভ্যাসকা বা অবজ্ঞার হাসি দিয়ে বলবে, " ইউটিউবে ভিডিও দেখি" কিংবা "লাইভে গান শুনি" কিংবা "গার্লফ্রেন্ডের খোঁজে আছি" আবার কিংবা "ফেসবুকাই!"
(দুঃখিত যে আমি কিংবা বেশি ইউজ করসি)

সবই ভালো। আসুন একটু ভেবে দেখি। ইউটিউবে গান কিংবা ভিডিও আমাদের চিত্তবিনোদন দ্যায়। গানেও আবেগ আসে কিংবা চিত্তবিনোদন দ্যায়। ফেসবুকেই নাহলে ভবিষ্যতের বউ পেলেন ( পরে বিয়ে করবেন কিনা আপনার ব্যাপার )। কিন্তু এগুলো আপনাকে কোনও শিক্ষা দিচ্ছে কি?

এখানে হয়তো অনেকে বলবেন ফেসবুকে অনেক গ্রুপে জ্ঞান - বিজ্ঞানের অনেক কিছু থাকে। ইউটিউবে অনেক চ্যানেলে শিক্ষামূলক অনেক কিছু থাকে। আপনারা হয়তো দেখাবেনও যে আপনি অমুক গ্রুপের মেম্বার, তমুক চ্যানেলের সাবস্ক্রাইবার।

এখানে প্রশ্ন ...

আপনি কয়দিন ঐ গ্রুপে ঢুকেছেন, পোস্ট দেখে কিছু শিখেছেন ?
কয়দিন চ্যানেল থেকে ভিডিও দেখেছেন?

আমাদের এই বর্তমান সরকারের একটা গুণ, প্রযুক্তিকে আনাচে - কানাচে ছড়িয়ে দিতে উদ্যোগ নিচ্ছে।

আপনি তার কতটুকু নিচ্ছেন?


হয়তো রবির internet.org এর কথা শুনেছেন। তারা ফেসবুককে বাংলাদেশে ফ্রিতে বেশ কয়টি ওয়েবসাইট ব্রাউজ করার সুবিধা দিচ্ছে। এতে আপনি খুশি। অনেকে খুশি।
এখানে আমার প্রশ্ন, আপনি কি free.facebook.com ছাড়া কোথাও গেছেন? উইকিপিডিয়াও ফ্রি ।

সেখান থেকে কি কিছু শিখেছেন?

এই প্রশ্ন গুলো আপনার কাছে।

আপনি যদি ইউরোপ আমেরিকায় তাকান, তারা সামাজিক যোগাযোগ করে ঠিকই। অন্যান্য কাজে সমান তাল রাখে।
ওদেশের গ্রেড ৯ - ১০ এর ছেলে - মেয়েরা হয় কোনও কিছু ডিজাইন করে, কম্পিউটারে নকশা আঁকে, কিঙ্গা প্রোগ্রামিং বা ওয়েব ডেভেলপিং করে।

বাংলাদেশে এই তরুণদের না জেগে ওঠার আরেকটা কারন হল, অনলাইনে ভালো কোনও বাংলা কন্টেন্ট নেই।
তবে আমরা যারা নেট ইউজ করছি, তারা কেউ নিশ্চয়ই ইংরেজি জানি না, এমন মানুষ নেই।

তবে কেন ইন্টারনেটে শিক্ষায় আপনার এতো অনিহা ? এতো কেবল বিনোদনের বস্তু নয়...

 © তাওসিফ তুরাবি

শেয়ার করুন

লেখকঃ

আমি তাওসিফ তুরাবি, অনলাইনাম (অনলাইন + নাম) ব্লগার তাওসিফ। এখন, ২০১৬ পর্যন্ত আমি ১৬ বছরের এক কিশোর। পড়াশোনা করি শহীদ পুলিশ স্মৃতি কলেজে। টেক ব্লগ লিখতে ভালবাসি। সাইন্স ফিকশন আর গল্প লিখতে পছন্দ করি।  জিআর+ ব্লগের এর একজন প্রতিষ্ঠাতা অ্যাডমিন।
আমাদের একটা ওয়েব ডেভেলপার ফার্ম আছে যার নাম জিআর+ আইটি বাংলাদেশ
এছাড়া আমার ব্যাক্তিগত ব্লগ রয়েছে। আমার ফেসবুক আইডিতে আমার সাথে সর্বক্ষণ যোগাযোগ করতে পারবেন। 


পূর্ববর্তী পোষ্ট
পরবর্তী পোষ্ট