এইজ অফ এম্পায়ারস ২ - দি এইজ অফ কিংস :: Age of Empires II - The Age Of King

আসসালামু আলাইকুম,

আগের ভারসনের রিভিউ দিয়েছিলাম। খেলেছেন মনে হয়। ভাল লেগেছে/ অনেকের ল্কেগেছে, আবার অনেকের হয়ত লাগেনি... এটা মানসিকতার বিষয়।
যাই হক আমি যেহেতু বলেছি, পুরো সিরিজের রিভিউ দেবো। দেবই।
এবার এইজ অফ এম্পেররের দ্বিতীয় সংস্করণের রিভিউ দেবো আপনাদের।



২০০০ সাল থেকে মাইক্রোসফট কর্পোরেশন এর ডেভেলপমেন্ট ও আপডেট তৈরি করে আসছে। এইজ অফ এম্পায়ার ২ ঃঃ দি এইজ অফ কিংস এর দ্বিতীয় সংস্করণ।

এখানে আপডেট হিসেবে আছে রিজাইসড গেইম, মানে রাজায় রাজায় যুদ্ধ, মাল্টিপ্লেয়ার গেইমিং, ক্যাম্পেইং গেইমিং।

কাম্পেইং গেইমিংএ কোন জাতির ইতিহাস ভিত্তি করে কাহিনি গড়া হয়েছে। যেমন মঙ্গোলিয়ায় চেঙ্গিস খান, গ্রিসের অ্যালেক্সান্ডার দি গ্রেট আর অনেক কাহিনি।

এছাড়া খেলোয়াড়ের সুবিধার্থে গেইমের ভেতর প্রতিটি জাতির ইতিহাস দেওয়া আছে।


এখানেও যেকোনো সিভিলাইজেশন অনুযায়ী খেলোয়াড়ের ইউনিট বদলাবে।

মানে আপনি যদি যেকোনো একটি জাতি সিলেক্ট করে খেলা শুরু করেন, তখন সেই জাতি অনুযায়ী আপনার বাড়িঘর, হাটবাজার, ওয়ার্কশপ সবকিছুর স্টাইল বদলে যাবে।

একেক জাতির একেক ক্ষমতা থাকবে।

যেমন জাপানিরা সামুরাই যোদ্ধা পাবে, আর চীনেরা চু-কো-নু বা তীরন্দাজ। তেমনি বাইজান্টাইনেরা পাবে বারসার্ক।

এছাড়া খেলায় আছে ক্ল্যাটাপুট বা প্রাচীন কালের পাথরের গোলা ছোড়ার কামান। বেশ কিউট দেখতে, ছোট দেখে আরও কিউট লাগে :D

আছে ব্যালিস্টিক তীর। এছাড়া আপডেট আছে ট্রিবুচেট। ট্রিবুচেট দিয়ে প্রাচীন কালের দুর্গের দেয়াল ভাঙ্গা হতো।

নানাভাবে আপনাকে আপডেট করতে হবে নিজের টিমকে।

নিজের যায়গায় নিজের শহর গড়ে নিতে হবে। প্রথমেই দেওয়া হবে তিনজন ভিলেজার এবং একটি টাউন হল।

টাউন হল দিয়েই সব যাত্রার শুরু।

তারপর নিজের পপুলেশানের সাথে সাথে বাড়ি ঘর বাড়াতে হবে।

ব্যারাক তৈরি করে সৈন্য তৈরি করতে হবে। মার্কেট তৈরি করে বন্ধু জাতির সাথে ব্যাবসা বাণিজ্য চালাতে হবে।

গাছ কেটে ন্যাচারাল রিসোর্স সংগ্রহ করতে হবে।

মাটি কেটে সোনা এবং পাথর উত্তোলন করতে হবে।

নিজের যোদ্ধা এবং বাহিনি গড়ে তুলতে হবে। শহর সুরক্ষায় দেয়াল তুলে দিতে হবে।

নিজের মানুষদের হিল করার জন্য এবং নিজের আহত সৈনিকদের হিল করার জন্য আপনাকে টেম্পল থেকে প্রিস্ট তৈরি করে নিতে হবে।

এছাড়া আছে নদী। আপনাকে বন্দর তৈরি করতে হবে। জেলে নৌকা তৈরি করে মাছ আহরন করতে হবে। এছাড়া যুদ্ধজাহাজ বানিয়ে শত্রু থেকে আত্মরক্ষা করতে হবে এবং আক্রমন করতে হবে।
খেলা শেষ করতে হবে অবজেক্টিভ কমপ্লিট করে। অবজেক্টিভ থাকতে পারে, সব ন্যাচারাল রিলিক সংগ্রহ করা অথবা ওয়ান্ডার বানানো অথবা অন্য রাজাকে মেরে ফেলা।

ওয়ান্ডার হতে পারে কোন বড় বাড়ি, ক্যাথেড্রাল অথবা মূর্তি!

গেইম খেলতে তেমন আহামরি কনফিগারেশন লাগবে না,

  • প্রসেসরঃ ৮০০ মেগাহারজ
  • র‍্যামঃ ৬৪ এমবি
  • গ্রাফিক্স মেমরিঃ ৬৪ এমবি
  • ওএসঃ এক্সপি, ৭, ভিস্টা, ৯৮
  • এইচডিডিঃ ৫০০ এমবি

সবাইকে আল্লাহ হাফেজ।




শেয়ার করুন

লেখকঃ

আমি তাওসিফ তুরাবি, অনলাইনাম (অনলাইন + নাম) ব্লগার তাওসিফ। এখন, ২০১৬ পর্যন্ত আমি ১৬ বছরের এক কিশোর। পড়াশোনা করি শহীদ পুলিশ স্মৃতি কলেজে। টেক ব্লগ লিখতে ভালবাসি। সাইন্স ফিকশন আর গল্প লিখতে পছন্দ করি।  জিআর+ ব্লগের এর একজন প্রতিষ্ঠাতা অ্যাডমিন।
আমাদের একটা ওয়েব ডেভেলপার ফার্ম আছে যার নাম জিআর+ আইটি বাংলাদেশ
এছাড়া আমার ব্যাক্তিগত ব্লগ রয়েছে। আমার ফেসবুক আইডিতে আমার সাথে সর্বক্ষণ যোগাযোগ করতে পারবেন। 


পূর্ববর্তী পোষ্ট
পরবর্তী পোষ্ট