ফেইক একাউন্ট ক্র্যাকডাউন শুরু করলো ফেইসবুক!




কয়েকদিন ধরেই শোনা যাচ্ছে অনেকের আইডি ফেইসবুক হতে ডিলিট হয়ে যাচ্ছে। একটা ঘাটাঘাটি করলেই জানা যাচ্ছে যে, তারা নিজেদের সম্পর্কে ভুল তথ্য দিয়েছিলো কিংবা একাধিক আইডি চলমান রেখেছিলো। ফেসবুক ঘোষনা করেছে যে তাদের ১.৮৬ বিলিয়ন ইউজার প্রতিমাসে ফেইসবুক ভিজিট করে।
এবং প্রতি শুক্রবার তাদের এই সংখ্যা কমে যায়।

ফেসবুক তাদের ফেইক একাউন্ট ডিলিট করা শুরু করেছে, এবং এর ফলে বাংলাদেশ, ইন্দোনেশিয়া এবং সৌদি আরবের স্প্যামার নেটওয়ার্কগুলো ভেঙ্গে পড়ছে। এসকল তথ্য জানা শবনম শেখ নামের ফেইসবুকের একজন টেকনিক্যাল প্রোগ্রাম ম্যানেজারের ব্লগ পোস্ট থেকে থেকে। 
এই স্যাপ্রযাম নেটওয়ার্কের মধ্যে বাংলাদেশের "সাইবার ৭১" অন্যতম বলে অনেকে মন্তব্য করেছেন।

সাধারণত স্প্যাম নেটওয়ার্কগুলো কাওকে হেনস্তা কিংবা কোনো পেইজের বা ব্যাক্তিগত প্রোফাইলের ফলোয়ার এবং লাইক বৃদ্ধিতে ব্যবহার হয়ে থাকে। এছাড়া নানা মিথ্যে সংবাদ এবং স্ক্যান্ডাল ভাইরাল করার জন্যও এই স্প্যাম নেটওয়ার্কের আশ্রয় নেয়া হয়।

ফেসবুক তাদের সোশ্যাল মার্কেটিং জন্যই ফেইক একাউন্ট ক্র্যাকডাউন শুরু করেছে বলে সংবাদমাধ্যম গুলোয় জানা গেছে। এর ফলে প্রচুর পরিমানে একাউন্ট একেবারেই ডিলিট হয়ে যাচ্ছে যার সংখ্যা ফেসবুক গোপন রেখেছে।

ফেইক একাউন্ট এবং রোবট, সোশ্যাল নেটওয়ার্কের ডাটা ব্যাঙ্কের জন্য বিরাট সমস্যা হয়ে দাঁড়ায়। এবং ব্যবহারকারীও এতে বিরক্ত হয়ে পড়ে। ২০১৪ সালে ফেসবুক তাদের রিপোর্টে ৬৭.৭ মিলিয়ন থেকে ১৩৭.৮ মিলিয়ন একাউন্ট ভুয়া হিসেবে চিহ্নিত করে।

ফেসবুকের পাশাপাশি টুইটারেরও একই সমস্যা রয়েছে। প্রায় ১৫% টুইটারের এক্টিভ ইউজারই রোবট বলে চিহ্নিত করেছে সাউদার্ন ক্যালিফর্নিয়া এবং ইন্ডিয়ানা ইউনিভার্সিটি।

শেয়ার করুন

লেখকঃ

আমি তাওসিফ তুরাবি, অনলাইনাম (অনলাইন + নাম) ব্লগার তাওসিফ। এখন, ২০১৬ পর্যন্ত আমি ১৬ বছরের এক কিশোর। পড়াশোনা করি শহীদ পুলিশ স্মৃতি কলেজে। টেক ব্লগ লিখতে ভালবাসি। সাইন্স ফিকশন আর গল্প লিখতে পছন্দ করি।  জিআর+ ব্লগের এর একজন প্রতিষ্ঠাতা অ্যাডমিন।
আমাদের একটা ওয়েব ডেভেলপার ফার্ম আছে যার নাম জিআর+ আইটি বাংলাদেশ
এছাড়া আমার ব্যাক্তিগত ব্লগ রয়েছে। আমার ফেসবুক আইডিতে আমার সাথে সর্বক্ষণ যোগাযোগ করতে পারবেন। 


পূর্ববর্তী পোষ্ট
পরবর্তী পোষ্ট